পাচার করা টাকা বৈধ করার সুযোগ বাজেটে – ২৪ বাংলাদেশ নিউজ
শুক্রবার , ১০ জুন ২০২২ | ১৯শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন ও বিচার
  4. আন্তর্জাতিক
  5. এক্সক্লুসিভ
  6. খুলনা
  7. খেলা
  8. গাজীপুর
  9. চট্টগ্রাম
  10. চাকুরীর খবর
  11. ঢাকা
  12. ফটোগ্যালারি
  13. বরিশাল
  14. বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
  15. বিনোদন

পাচার করা টাকা বৈধ করার সুযোগ বাজেটে

প্রতিবেদক
২৪ বাংলাদেশ নিউজ বার্তাকক্ষ
জুন ১০, ২০২২ ১২:০৭ পূর্বাহ্ণ

পাচার হওয়া অর্থ বিনা প্রশ্নে আয়কর বিবরণীতে প্রদর্শনের সুযোগ দেয়া হয়েছে এবারের বাজেটে। বৃহস্পতিবার ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানান, ২০২৩ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত ১ বছরের জন্য এ সুযোগ রাখা হবে।

 

অর্থমন্ত্রী জানান, কোনো করদাতা বাংলাদেশের বাইরে অর্থের মালিক হলে, তা আয়কর বিবরণীতে দেখানো না হলে, নির্দিষ্ট কর দিয়ে তা প্রদর্শনের সুযোগ পাবেন। আর পাচার করা অর্থ দেশে আনা হলে এর ওপর ১৫ শতাংশ, বিদেশে থাকা অস্থাবর সম্পত্তির উপর ১০ শতাংশ ও বাংলাদেশে পাঠানো নগদ অর্থের ওপর ৭ শতাংশ হারে করারোপ করা হবে।

 

এছাড়া দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে আবারো আড়াই শতাংশ কর্পোরেট কর কমানোর প্রস্তাব দেয়া হয়। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত নয় এমন কোম্পানিকে ২৭ দশমিক ৫ শতাংশ হারে করপোরেট কর দেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে। বর্তমানে তা ৩০ শতাংশ।

 

অর্থমন্ত্রীর প্রস্তাব অনুযায়ী, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানির করহার নেমে আসবে ২২ দশমিক ৫ শতাংশে।

 

বাজেট বক্তৃতায় তিনি বলেন, অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে সরকারি ব্যয় নির্বাহের জন্য এক দিকে আমাদের অধিক পরিমাণে রাজস্ব জোগান দিতে হবে, অন্য দিকে বেসরকারি খাতেও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে গতিশীলতা আনতে হবে। এ অবস্থায় বিদেশে অর্জিত অর্থ ও সম্পদ অর্থনীতির মূল স্রোতে আনার মাধ্যমে বিনিয়োগ ও আর্থিক প্রবাহ বৃদ্ধির লক্ষ্যে তিনি আয়কর অধ্যাদেশে নতুন বিধান যুক্ত করার প্রস্তাব দেন।

 

অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রস্তাবিত বিধান অনুযায়ী বিদেশে অবস্থিত যে কোনো সম্পদের উপর কর পরিশোধ করা হলে আয়কর কর্তৃপক্ষসহ যে কোনো কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে কোনো প্রশ্ন উত্থাপন করবে না।

 

তিনি জানান, প্রস্তাবিত বিধান কার্যকর হলে অর্থনীতির মূল স্রোতে বৈদেশিক মুদ্রার প্রবাহ বৃদ্ধি পাবে, আয়কর রাজস্ব আহরণ বাড়বে; আর করদাতারাও বিদেশে অর্জিত অর্থ-সম্পদ আয়কর রিটার্নে প্রদর্শনের সুযোগ পেয়ে স্বস্তিবোধ করবেন।

 

অর্থমন্ত্রীর প্রস্তাব অনুমোদন হলে পাচার হয়ে যাওয়া অর্থ দেশে ফিরবে। আর সেই অর্থ মিশে যাবে অর্থনীতির মূল প্রবাহে। এর মাধ্যমে সংকট কাটিয়ে অর্থনীতির চাকা সচল করার কথা বলেছেন তিনি।

সর্বশেষ - এক্সক্লুসিভ