রবিবার , ২২ জানুয়ারি ২০২৩ | ২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন ও বিচার
  4. আন্তর্জাতিক
  5. এক্সক্লুসিভ
  6. খেলা
  7. চাকুরীর খবর
  8. ফটোগ্যালারি
  9. বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
  10. বিনোদন
  11. বিবিধ
  12. রাজধানী
  13. রাজনীতি
  14. শিক্ষা
  15. শিল্প ও সাহিত্য

মার্চ থেকে হাসপাতালেই ব্যক্তিগত রোগী দেখবেন ডাক্তাররা

প্রতিবেদক
বার্তা কক্ষ
জানুয়ারি ২২, ২০২৩ ৮:৫৩ অপরাহ্ণ

এখন থেকে নিজ হাসপাতালেই ব্যক্তিগত রোগী দেখতে পারবেন সরকারি চিকিৎসকরা। মার্চ থেকে নিজের ডিউটি টাইমের বাইরে বাড়তি ফি নিয়ে রোগী দেখতে পারবেন তারা। রোববার দুপুরে সচিবালয়ে চিকিৎসকদের সংগঠনের সঙ্গে বৈঠকের পর সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
এর ফলে হাসপাতালে ভর্তি রোগীরাও বেশি সময় চিকিৎসককে পাবে বলেও জানান স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।
এ সময় তিনি আরও বলেন, সরকারি হাসপাতালের প্রায় সব চিকিৎসকই ডিউটি টাইমের বাইরে ব্যক্তিগত চেম্বারে বসেন। ফলে দিনের একটা সময় পর হাসপাতালে দক্ষ চিকিৎসককে পাওয়া যায় না।
এমন পরিস্থিতি পরিবর্তনে ভিন্ন এক উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। মার্চে সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকদের জন্য চালু হচ্ছে ব্যক্তিগত চেম্বার। পাইলট প্রকল্প হিসেবে ২০টি জেলা, ৫০টি উপজেলা ও পাঁচটি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে এ ব্যবস্থা করা হচ্ছে।
জাহিদ মালেক বলেন, ‘চিকিৎসকরা ডিউটি সময়ের বাইরে বিভিন্ন ক্লিনিক বা ফার্মেসিতে যেভাবে চেম্বার খুলে রোগী দেখতেন, সরকারি এই বিশেষ সুবিধার ফলে নিজ নিজ সরকারি কর্মস্থলেই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগণ চেম্বারে রোগী দেখতে পারবেন।’
মন্ত্রী জানান, কোন চিকিৎসকরা এই চেম্বারে বসবেন, ফি কত হবে সেসব ঠিক করতে একটি কমিটি গঠন করা হবে। হাসপাতাল চেম্বারের পর যদি কেউ বাইরে রোগী দেখতে চান সেটিও করা যাবে।
তিনি আরও বলেন, ‘দেশের মানুষের জন্য অত্যন্ত জনকল্যাণকর এই কাজের শুরু হবে মহান স্বাধীনতা মার্চ মাসের শুরু থেকেই। এই কাজটি শুরু হলে দেশের লাখ লাখ মানুষ বিভিন্ন ক্লিনিক, ফার্মেসিতে ডাক্তার দেখানোর ভোগান্তি থেকে রেহাই পাবেন।’
চিকিৎসক নেতারা মনে করেন, এতে দরিদ্র রোগীরা বাড়তি সুবিধা পাবেন। বিএমএ’র সভাপতি বলেন, পাইলট প্রকল্প সফল হলে ভবিষ্যতে সারা দেশে এ ব্যবস্থা চালু হতে পারে।
সভায় বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মোস্তাফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাচিপ সভাপতি অধ্যাপক ডা. জামাল উদ্দিন চৌধুরী, বিএসএমএমইউর উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ, সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. এএইচএম এনায়েত হোসেন,অধ্যাপক ডা.কাজী দ্বীন মোহাম্মদ উপস্থিত ছিলেন।
স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব ড.মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব মো. সাইফুল হাসান বাদল,স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ বি এম খুরশীদ আলম সভায় অংশ নেন।

সর্বশেষ - সারাবাংলা